‘দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান’

‘দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান’
Spread the love

এশিয়ানপোস্ট প্রতিবেদক:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মিয়ানমার আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র। তাই রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে তৃতীয় পক্ষকে না এনে নিজেরা দ্বিপাক্ষিকভাবে আলোচনার মাধ্যমে বাংলাদেশ এ সমস্যার সমাধান করতে চায়। এ ক্ষেত্রে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পররাষ্ট্রনীতি ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে শত্রুতা নয়’ নীতিতেই এগুচ্ছে বাংলাদেশ।

 

তিনি বলেন, অপপ্রচারের কারণে যেন দেশের অগ্রগতি ব্যাহত না হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অহেতুক অপপ্রচার হয়। এর পেছনে আছে স্বাধীনতা বিরোধীরা।

 

রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁও-এ রবিবার সকালে রাষ্ট্রদূতদের এক সম্মেলনে শেখ হাসিনা এ কথা বলেছেন। ‘মানুষ ও শান্তির জন্য কূটনীতি’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী সম্মেলনে বিশ্বের ৫৮ দেশে থাকা বাংলাদেশের কূটনীতিকরা অংশ নিয়েছেন। প্রথমবারের মতো বিদেশে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও স্থায়ী প্রতিনিধিদের নিয়ে এ দূত সম্মেলনের আয়োজন করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

 

শেখ হাসিনা বলেন, মিয়ানমারের সাথে আমাদের কোন সমস্যা ছিল না। কিন্তু বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মেজর জিয়াউর রহমানের সময় থেকে মিয়ানমারের সাথে রোহিঙ্গাদের নিয়ে সমস্যা শুরু হয়েছে। এরপর আর কোন সরকার এই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেনি। এর ধারাবাহিকতায় রোহিঙ্গা সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

 

তিনি বলেন, মিয়ানমারের সাথে আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে। প্রতিবেশীর সাথে সমস্যা সমাধানে আমরা অন্য কোন পক্ষ চাই না, নিজেরা আলোচনা করে এই সমস্যার টেকসই সমাধান চাই।

 

দারিদ্র্যই বাংলাদেশের একমাত্র শত্রু হিসেবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, দরিদ্রতার বিরুদ্ধে আমাদের সবাইকে সম্মিলিতভাবে লড়াই করতে হবে। শুধু আমাদের দারিদ্র্য নয়, প্রতিবেশীদের দারিদ্র্য নির্মূলেও আমরা যথাসম্ভব সহায়তা করতে প্রস্তুত।

 

তিনি বলেন, বিদেশে যুদ্ধাপরাধী, স্বাধীনতা বিরোধী ও বিভিন্ন এজেন্সির চালানো পরিকল্পিত অপপ্রচার মোকাবিলায় বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে তৎপর হতে হবে।

 

কূটনীতিকদের অনুরোধ করে তিনি বলেন, প্রবাসীরা যেন হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয়টি আপনারা দেখবেন।

 

নির্বাচন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দেশের মানুষ ভোট দিলে ক্ষমতায় আসবো, না দিলে আসবো না। আগামী নির্বাচনে জয় আসুক বা না আসুক, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ব্যাহত হবে এমন কিছু যেন না হয়।

Share this...
Share on FacebookPrint this pageShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn



Skip to toolbar