নিকলীতে অগ্নিকান্ডে কয়েকটি দোকান ভষ্মীভুত

নিকলীতে অগ্নিকান্ডে কয়েকটি দোকান ভষ্মীভুত
Spread the love
 ফারুকুজ্জামান:
কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী উপজেলার জারুইতলা ইউনিয়নের রোদারপুড্ডা বাজারে তিনটি দোকানে আগুন লেগে অন্তত ১৫ লাখ টাকার ওষুধসহ মালামাল পুড়ে গেছে।
শুক্রবার সকাল সাতটার দিকে রোদারপুড্ডা বাজারের তিনটি ব্যাক্তি মালিকানাধীন দোকান ঘরে ভয়াবহ এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। আগুন লাগার খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ ও বাজিতপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট আসে। কিন্ত এর আগেই এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা প্রায় তিন ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল সাতটায় রোদারপুড্ডা বাজারের মুদিমালের ব্যবসায়ী হরিচরণ দাস এর দোকানের বিদ্যুৎতের সটশার্কিট থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে।মূহুতে পাশে থাকা পরিতোষ দেবনাথের কাপড়ের দোকান ও সুন্নত আলীর ওষুধের দোকানে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে দোকান তিনটিতে থাকা সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন তিন ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ ও বাজিতপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট আসে। পুড়ে যাওয়া মুদির দোকনের মালিক হরিচরণ দাস, পরিতোষ দেবনাথ ও পল্লী চিকিৎসক সুন্নত আলী জানান, তাদের দোকানের প্রায় ১৫ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।
নিকলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নাসির উদ্দিন ভূইয়া বলেন, সকালে খবর পেয়ে পুলিশসহ আমি ঘটনাস্তলে যায়। এদিকে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান নিকলী-বাজিতপুর স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব আফজাল হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য জাকির হোসেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কারার সাইফুল ইসলাম , নিকলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোঃ ইয়াহ্ ইয়া খাঁন, জারুইতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম (মানিক)ও নিকলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কারার শাহরিয়া আহম্মেদ তুলিপ। এসময় সাংসদ ক্ষতিগ্রস্থ তিন দোকানের মালিককে নগদ ছয় হাজার টাকা ও তিন বান্ডিল করে টিন প্রদান করেন এবং তিনি ব্যাক্তিগত ভাবে প্রত্যেক দোকানের মালিককে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।
Share this...
Share on FacebookPrint this pageShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn



Skip to toolbar