অবাঙালিরাই ফ্যাক্টর

অবাঙালিরাই ফ্যাক্টর
Spread the love

এশিয়ানপোস্ট ডেস্ক : অবাঙালি অধ্যুষিত ও ব্যবসা প্রসিদ্ধ উপজেলা সদর সৈয়দপুর ও কিশোরীগঞ্জ উপজেলার নিতাই, পুঁটিমারী ও বড়ভিটা ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত নীলফামারী-৪ সংসদীয় আসন। এ আসনে নির্বাচনী ডামাডোল বেজে
উঠেছে অনেক আগেই। বর্তমানে এ আসনটি জাতীয় পার্টির দখলে থাকলেও আওয়ামী লীগ তা ছিনিয়ে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় মিলে ৮ জন আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী বছর দেড়েক আগে থেকেই এলাকায় কাজ করে যাচ্ছেন। অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জর্জরিত আর বহু গ্রুপে বিভক্ত জেরবার সৈয়দপুর আওয়ামী লীগের সব গ্রুপই এখানে সক্রিয়। দশা এমনই যে, কোনো দাওয়াতি বাড়িতে একে-অন্যের দেখা হলেও কারো সঙ্গে কারো কথা হয় না।

ওদিকে নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দীর্ঘ তালিকা নিয়ে চরম বিপাকে রয়েছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। তবে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায় গোড়ার দিকে রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আখতার হোসেন বাদল, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন, ব্যারিস্টার মো. মোখছেদুল ইসলাম, সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মো. সিকান্দার আলী, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির সদস্য আমেনা কোহিনূর আলম, আওয়ামী কর আইনজীবী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট মো. আমিরুল ইসলাম আমীর, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নাফিউল করিম নাফাও রয়েছেন এ তালিকায়। এ আসনের প্রার্থিতা নিয়ে বিএনপি ও জাতীয় পার্টিতেও রয়েছে বিরোধপূর্ণ ঝঞ্ঝাট। জিইয়ে থাকা বিএনপি’র একাধিক গ্রুপ এখানে যেমন সক্রিয়, তেমনি কোনো গ্রুপই কাউকে ছাড় দিতে নারাজ। এখানে বিএনপি’র সাংগঠনিক অবস্থা এতটাই নড়বড়ে যে, কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতেও হাতাহাতি থেকে নিবৃত থাকেনি নেতাকর্মীরা। তাই স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীদের দাবি প্রার্থিতা বাছাইয়ে আগের হিসাব-নিকাশ ভুলে নতুন করে সবদিক বিবেচনায় নিয়ে কৌশলী হতে হবে কেন্দ্রকে। তবে নির্বাচনী ময়দানে জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন সরকারের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা সাবেক মহিলা সংসদ সদস্য বিলকিস ইসলাম রয়েছেন। তবে এ আসনে সৈয়দপুর কামারপুকুর কলেজের প্রভাষক ও উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শওকত হায়াত শাহ মনোনয়ন চাইবেন বলে দলের একটি সূত্র জানায়। ওদিকে জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও বিরোধীদলীয় হুইপ শওকত চৌধুরী নানা কারণে এলাকায় ইমেজ সংকটে পড়ায় নীলফামারী-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শিল্পপতি জাফর ইকবাল সিদ্দিকী এ আসনে মনোনয়ন চাইবেন বলে দলের একাধিক সূত্র জানায়। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে এখানে বসবাস করা অবাঙালি ভোটাররা বরাবরই নির্বাচনে জয় পরাজয়ের নিয়ামক হয়ে ওঠে। আসছে নির্বাচনে বিহারীরা আবারও ফ্যাক্টর হয়ে উঠবে এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। তাই আওয়ামী লীগও এবার প্রার্থী বাছাইয়ে কৌশলী হয়ে সব গ্রুপের কাছেই ঐক্যের প্রতীক হিসেবে কাউকে বেছে নিতে পারে। ২ লাখ ৭৯ হাজার ১০২ জন ভোটারের মধ্যে সৈয়দপুর উপজেলায় রয়েছে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৬৩৬ জন এবং কিশোরীগঞ্জে রয়েছে ১ লাখ ১২ হাজার ৪৬৬ জন। আর মোট ভোটারের মধ্যে পুরুষ ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে ১ লাখ ৩৯ হাজার ৫১৪ জন আর নারী ভোটারের সংখ্যা হচ্ছে ১ লাখ ৩৯ হাজার ৫৮৮ জন। সূত্র : মানবজমিন

Share this...
Share on FacebookPrint this pageShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn



Skip to toolbar