উপজেলায় থাকুন নয়তো চাকরি ছেড়ে দিন ,সরকারি চিকিত্সকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

উপজেলায় থাকুন নয়তো চাকরি ছেড়ে দিন ,সরকারি চিকিত্সকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী
Spread the love

এশিয়ানপোস্ট ডেস্ক :  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি চিকিত্সকদের কর্মক্ষেত্রে থেকে যথাযথভাবে মানুষকে সেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, ‘কর্মস্থলে থাকুন, নয়তো চাকরি ছেড়ে দিন।’ গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সাতটি সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে জাপানের তৈরি অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যখন উপজেলা পর্যায়ে চিকিত্সকদের নিয়োগ দেই তখন অনেকেই আছেন যারা কর্মক্ষেত্রে থাকতে চান না। বরং তারা যেকোনো উপায়েই ঢাকায় থাকেন। যদি চিকিত্সকদের ঢাকাতেই থাকার ইচ্ছা হয়, তাহলে তাদের সরকারি চাকরি করার প্রয়োজন নেই। রাজধানীতে বসে প্রাইভেট রোগী দেখে তারা অনেক টাকা উপার্জন করতে পারে। তাই তাদের চাকরি ছেড়ে দিয়ে বাড়িতে চলে যাওয়াই ভালো। দয়া করে তারা বিদায় নিয়ে বাড়ি চলে যাক, আমরা তাদের স্থানে নতুন নিয়োগ দিব।’

দেশের মেডিক্যাল কলেজগুলোতে মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার দেশে বিপুল সংখ্যক মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছে। আমরা ইতোমধ্যেই পাঁচটি সেনানিবাসে মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠার অনুমোদন দিয়েছি এবং পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সেনানিবাসেও এই ধরনের কলেজ প্রতিষ্ঠা করব। তিনি বলেন, এসব মেডিক্যাল কলেজে কি ধরনের চিকিত্সা সেবা প্রদান করা হচ্ছে তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তদারকি করতে হবে। মেডিক্যাল কলেজগুলোতে ‘রোগী হত্যাকারী ডাক্তার’ নাকি ‘রোগী রক্ষাকারী ডাক্তার’ তৈরি হচ্ছে, তা তাদের দেখতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর সরকার স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষা নিশ্চিতের লক্ষ্যে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছে এবং চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে আরো দুটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

শেখ হাসিনা বলেন, স্বাস্থ্য সেবা দেশের মানুষের কাছে পৌঁছে দিচ্ছি। আপনাদের আরো সচেতন হতে হবে। আমাদের ডাক্তাররা যেন কর্মস্থলে থাকে। উপজেলায় আবাসন সমস্যার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এই সমস্যা সমাধানে উপজেলাগুলোতে বহুতল ভবন নির্মাণ করতে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে মাল্টিস্টোরেড বিল্ডিং যদি করে দেয়, অনেক সরকারি অফিসার ওখানে ভাড়া নিয়ে থাকতে পারবে।

স্বনামধন্য মেডিক্যাল কলেজের শ্রেণিকক্ষের পাঠ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে বিভিন্ন জেলার মেডিক্যাল কলেজে দেখানোর কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া বিদেশি বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকদের দেশের মেডিক্যাল কলেজগুলোতে আসতে দেওয়া উচিত বলেও তিনি মন্তব্য করেন। প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে আওয়ামী লীগ সরকারে নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন। প্রত্যেকটা বিভাগীয় শহরে একটি করে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার কথাও উল্লেখ করেন। গ্যাস্ট্রো অ্যান্ট্রোলজিতে পিছিয়ে থাকার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটা গ্যাস্ট্রো অ্যান্ট্রোলজি ইনস্টিটিউট তো করার কথা। আমি জানি না সেটার ভাগ্য কোথায় ঝুলে আছে।’ এসময়  শেখ হাসিনা দ্বীপাঞ্চল ও হাওর অঞ্চলে নৌ অ্যাম্বুলেন্সের প্রয়োজনীয়তার কথাও তুলে ধরেন ।

গতকাল  জাতীয় হূদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, বান্দরবান সদর হাসপাতাল এবং গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া, গাজীপুরের কালিয়াকৈর, খুলনার ফুলতলা, কুড়িগ্রামের রাজীবপুর, নেত্রকোনার কেন্দুয়া ?উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রতিনিধিদের হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি অ্যাম্বুলেন্সগুলো রক্ষণাবেক্ষণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে আলাদা তহবিল গড়ে  তোলারও নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন, মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, স্বাস্থ্য সচিব মো. সিরাজুল হক খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী গতকাল সকালে তাঁর কার্যালয়ে পটুয়াখালী জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানকে শপথ বাক্য পাঠ করান। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

সাংবাদিক লাভলুর চিকিত্সায় অনুদান: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দৈনিক ভোরের কাগজের প্রধান প্রতিবেদক সৈয়দ আকতারুজ্জামান সিদ্দিকী লাভলুর চিকিত্সায় ১০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। গতকাল বিকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তাঁর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এই অনুদানের চেক প্রদান করেন। দীর্ঘদিন ধরে লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত লাভলু সম্প্রতি ভারত থেকে চিকিত্সা নিয়ে ফিরেছেন। তিনি চিকিত্সা নিতে আবারও ভারতে যাবেন।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গৃহীত পদক্ষেপগুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে স্বাস্থ্যখাতে ব্যাপক সাফল্য অর্জিত হয়েছে। সারাবিশ্বে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের বিষয়টি প্রশংসিত হচ্ছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় জেলা-উপজেলা পর্যায়ের হাসপাতালে কর্মস্থলে চিকিত্সকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করা হবে। কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বসে শিগগিরই স্বাস্থ্যখাতের সমস্যাগুলো দূর করা হবে।

Share this...
Share on FacebookPrint this pageShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn



Skip to toolbar